1. s.m.amanurrahman@gmail.com : admi2017 :
রবিবার, ০৯ মে ২০২১, ০৫:১২ অপরাহ্ন

পশ্চিমবঙ্গে বিজেপি’র সাথে ব্যাবধান বাড়ছে এগিয়ে থাকা তৃণমূলের

ভিশন ডেস্ক রিপোর্ট
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ২ মে, ২০২১
পশ্চিমবঙ্গে বিজেপি’র সাথে ব্যাবধান বাড়ছে এগিয়ে থাকা তৃণমূলের
ছবি: সংগৃহীত

ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনে ভোট গণনার শুরুতে বিজেপি’র তুমুল প্রতিদ্বন্দ্বিতার আভাস থাকলেও দিন গড়ানোরসাথে সাথেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তৃণমূল কংগ্রেস বড় ধরনের জয় পেতে যাচ্ছে বলে ক্রমশ: স্পষ্ট হচ্ছে।

সর্বশেষ তথ্যমতে, অনেকটাই এগিয়ে রয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। বিধানসভার ২৯২টি আসনের মধ্যে ২৮৪টির ভোট গণনায় মোট ২০৭টি কেন্দ্রে এগিয়ে রয়েছে তারা। আর প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী বিজেপি এগিয়ে রয়েছে ৮১টি কেন্দ্রে। তবে চূড়ান্ত ফলাফল পেতে অপেক্ষা করতে হতে পারে সন্ধ্যা পর্যন্ত।

এদিকে, পশ্চিমবঙ্গের সবার মনোযোগ নন্দীগ্রামের দিকে। কারণ এখান থেকেই প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন রাজ্যের সবচেয়ে হেভিওয়েট প্রার্থী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নন্দীগ্রামের রায় কোন দিকে যায় সবার নজর সেদিকে। পশ্চিমবঙ্গের ব্যাটলগ্রাউন্ড বলে পরিচিত নন্দ্রীগ্রামে সকাল থেকেই এগিয়ে আছেন তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়া শুভেন্দু অধিকারী। এবার সবার চোখ এই কেন্দ্রটিতে। কারণ, এখানে তার বিপরীতে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন বর্তমান রাজ্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। একসময় মমতার সহকর্মী ও ঘনিষ্টজন বলে পরিচিত শুভেন্দু অধিকারী। তবে সময় গড়ানোর সাথে সাথে দুই প্রার্থীর মাঝে ব্যবধান ক্রমশ কমে আসছে।

ফলে তৃণমূল শিবির এখনো মমতা বন্দোপাধ্যায়ের জয়ের ব্যাপারে মোটামুটি নিশ্চিত। তারা বলছেন, নন্দীগ্রাম ২ নম্বর ব্লকে গণনার শেষে শুভেন্দু এগিয়ে আছে ঠিকই। কিন্তু এখনো ১ নম্বর ব্লকে ভোট গণনা শুরু হয়নি। আর সেটিতে এগিয়ে থেকে জয় নিশ্চিত করবেন দিদি।

রাজ্যের বর্তমান মন্ত্রী ও তৃণমূল নেতা ফিরহাদ হাকিম বলেন, জয়ের ব্যাপারে নিশ্চিত হলেও এবার কোনো বিজয় মিছিল হবে না। রাজ্যে অনেক মানুষ করোনায় মারা যাচ্ছেন, আমার আত্মীয়ও মারা গেছেন। তাই এবার আর আনন্দ করার মতো মানসিক অবস্থা নেই কারো।

নন্দীগ্রামের ফলাফল প্রসঙ্গে তিনি বলেন, শুভেন্দু অধিকারীর কাছে মমতা বন্দোপাধ্যায় পিছিয়ে থাকলেও দুশ্চিন্তার কোনো কারণ নেই। আমরা কাজ করছি এবং তৃতীয়বারের মতো মুখ্যমন্ত্রী হতে যাচ্ছেন মমতা।

রোববার পশ্চিমবঙ্গের পাশপাশি ভারতের আরও তিনটি রাজ্য আসাম, তালিম নাডু ও কেরালা এবং কেন্দ্রশাসিত পদুচেরির বিধানসভা নির্বাচনেরও ভোট গণনা হচ্ছে।

ভারতজুড়ে করোনাভাইরাসের প্রবল সংক্রমণের মধ্যেই গণনাকেন্দ্রগুলোতে কঠোরভাবে সতর্কতাবিধি পালনের মাধ্যমে ভোট গণনা হচ্ছে বলে জানিয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যম। গণনা কেন্দ্রের সংখ্যাও বাড়ানো হয়েছে।

প্রাথমিক ভোট গণনায় আসামে বিজেপি সুস্পষ্ট ব্যবধানে এগিয়ে আছে, তামিল নাডুতে ডিএমকে বিজয় উৎসব শুরু করে দিয়েছে এবং কেরালায় এলডিএফ ফের ক্ষমতায় আসতে যাচ্ছে বলে আভাস পাওয়া যাচ্ছে।

১০ বছর আগে বাম রাজত্বের অবসান ঘটিয়ে পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূলের শাসন কায়েম করেছিলেন মমতা। ২০১৬-তেও সেই ধারায় ছেদ পড়েনি। কিন্তু ২০১৯ এর লোকসভা নির্বাচনের ফল প্রকাশের পরই রাজ্যে বিজেপির শক্তিশালী অবস্থান ধরা পড়ে। তারপরও আগামী পাঁচ বছর পশ্চিমবঙ্গের ক্ষমতা মমতার তৃণমূলের হাতেই থাকছে বলে ধারণা পাওয়া যাচ্ছে।

পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভার ২৯৪টি আসনের মধ্যে ভোট হয়েছে ২৯২টি আসনে। সাত কোটি ৩২ লাখ ভোটারের মধ্যে ভোট দিয়েছেন প্রায় ৮১ শতাংশ।

সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিশ্চিত করতে গেলে এ রাজ্যে পেতে হবে ১৪৮টি আসন। নির্বাচনের পর বেশিরভাগ বুথ ফেরত সমীক্ষায় তৃণমূলই এগিয়ে ছিল।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
স্বত্ব © ২০২১ ডেইলি ভিশন টুয়েন্টিফোর
Theme Customized BY NewsFresh.Com